June 20, 2024

৫৩ বর্ষের নশিরহাট হরিহরপুর সর্বজনীন দুর্গোৎসব পুজো কমিটির অভিনব পুজোর থিম “হারিয়ে যাওয়া যাত্রাপালার নানান দৃশ্য

1 min read

৫৩ বর্ষের নশিরহাট হরিহরপুর সর্বজনীন দুর্গোৎসব পুজো কমিটির অভিনব পুজোর থিম “হারিয়ে যাওয়া যাত্রাপালার নানান দৃশ্য

তপন চক্রবর্তী,কালিয়াগঞ্জ ৭ সেপ্টেম্বর; উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ শহরের নসিরহাট হরিহরপুর সার্ব জনীন দুর্গাপূজার ৫৩ তম বর্ষের অভিনব থিম “যাত্রা শুরু” যাত্রা পালার অভিনব দৃশ্য। যাত্রার এলাকা কলকাতার চিৎপুরের দৃশ্য খোদ গ্রামের মাঝে।সেই।যাত্রা গ্রামে থাকবে গোটা এলাকায় বিভিন্ন যাত্রা দলের পোস্টার,টিকিট কাউন্টার, যাত্রার মঞ্চ, যাত্রা পালার মঞ্চে থাকবে যাত্রার বিভিন্ন ব্যবহৃত বাদ্যযন্ত্র।বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রের মাধ্যমে পূজা মন্ডপে বাজতে থাকবে যাত্রার আবহ সঙ্গীত। যাত্রায় যে ধরনের আলোর ব্যবহার হয়ে থাকে তার সাথে সামঞ্জস্য রেখেই আলোর ব্যবহার করা হবে।

নসিরহাট হরিহরপাড়া সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির কর্ণধার শুভময় সরকার এক সাক্ষাৎকারে বলেন এবারের দুর্গোৎসবের উৎসবে তারা হারিয়ে যাওয়া সংস্কৃতি যাত্রা উৎসব আগে কেমন ছিল, যাত্রা উৎসবের মাধ্যমে লোক শিক্ষার প্রসার কি ভাবে ঘট তো সাধারনমানুষদের মধ্যে । সেই সব হারিয়ে যাওয়া দৃশ্য এ যুগের ছেলে মেয়েদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে শুভময় সরকার জানান। ক্লাবের সদস্যরা বলেন থার্মকল ও নিষিদ্ধ প্লাস্টিক বর্জিত দ্রব্যের সম্ভারে পূজা মন্ডপ তৈরি করা হবে। যাত্রার অনুষ্ঠানে যেমন চতুর্দিকে টিন দিয়ে ঘেরা থাকে ঠিক সেভাবেই টিন দিয়ে ঘেরা থাকবে।ঘেরা দেওয়া টিনের গায়ে বিভিন্ন যাত্রা পালার পোস্টার লাগানো থাকবে।

পূজা কমিটির অপর কর্নধার তথা বিশিষ্ট সমাজসেবী স্বপন সরকার(সুকুমার) বলেন বাংলার হারিয়ে যাওয়া আমাদের সেই ঐতিহ্যবাহী যাত্রা নিযে কেউ ভাবতে চায় না কাউকে ভাবাতেও সাহায্য করে না।আমরা উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জের নসিরহাট হরিহরপুর সার্বজনীন দুর্গোৎসব পূজা কমিটি এবার সবাইকে বিশেষ করে উত্তর দিনাজপুর জেলার মানুষদের সেই আমলের হারিয়ে যাওয়া যাত্রা উৎসবকে নিয়ে ভাবতে উদ্বুদ্ধ করবো।এটাই আমাদের এবারের দুর্গাপূজার মূল লক্ষ। আমাদের বাপ ঠাকুরদরা কিভাবে উপভোগ করতো তার কিছু কিছু খন্ড চিত্র তুলে ধরবার চেষ্টা করবো।

 

 

।যা জেলার যাত্রা শিল্পী বা লোক শিল্পীদের মধ্যে একটা বার্তা দিতে পারবো।তাইতো হারিয়ে যাওয়া যাত্রা ও যাত্রা শিল্পীদের সন্মান জানাতেই আমাদের পূজা কমিটির সদস্যরা তৈরি হচ্ছে বলে স্বপন বাবু জানান।পূজা কমিটির কর্নধার স্বপন সরকার বলেন। করোনা আব হে গত দুই বছর আমরা আতঙ্কের মধ্যে পুজো করলেও এবার সেই আতঙ্ক মুক্ত আমরা।যদিও নির্মূল হয়েছে তা বলা যাবে না। তবুও এবারের আমাদের দুর্গোৎসব হবে আতঙ্কহীন করোনার মধ্যে দিয়ে। তাই আমাদের দুর্গোৎসব কমিটি এবার তৃতীয়াতে পুজোর উদ্বোধন করা হবে হারিয়ে যাওয়া যাত্রার নির্যাসের মাধ্যমে।

 

এবারের পূজায় কত বাজেট তা জানতে চাইলে স্বপন বাবু বলেন বাজেট তো একটা হবেই। পুজোর বাজেট আমাদের কোন দিন বিগ বলে কিছু হয়না।আমাদের কাছে বিগ বাজেটের চেয়ে মানুষদের সামনে বড় কিছু শিক্ষণীয় থিম তুলে ধরাটাই আমাদের পূজা কমিটির বড় সাফল্য। আমাদের পুজোয় এবারের বাজেটে ১১লক্ষ্ টাকা।তবে উত্তর দিনাজপুর জেলায় এবারের পুজো উদ্বোধনে কালিয়াগঞ্জের নসিরহাট হরিহরপুর সার্বজনীন দুর্গোৎসব জেলার মধ্যে চমক দিতে চলেছে যে সে কথা নিশ্চিত ভাবেই বলা যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও খবর..