April 24, 2024

বিজেপির ও বি সি মোর্চার সামাজিক সন্মেলনে এলাকার ও বি সি সম্প্রদায়ের মানুষ তাদের না পাবার ক্ষোভ উগ রিয়ে দিল

1 min read

বিজেপির ও বি সি মোর্চার সামাজিক সন্মেলনে এলাকার ও বি সি সম্প্রদায়ের মানুষ তাদের না পাবার ক্ষোভ উগ রিয়ে দিল

তপন চক্রবর্তী,কালিয়াগঞ্জ,২৭ ফেব্রুয়ারি:যারা ওবিসি আছে তাদের প্রতি কেউ নজর দেয়নি। এস সি, এস টি, মাইনোরিটি মানুষদের জন্য সরকার শুধু ভাবে কিন্তু ওবিসিদের জন্য কোন চিন্তা-ভাবনা করে না সরকার। তাই ধীরে ধীরে ওবিসিরা পিছনের দিকে চলে যাচ্ছে। উত্তর দিনাজপুর জেলার করণ দীঘিতে বিজেপির ও ওবিসি মোর্চার একটি সামাজিক সম্মেলনে এ কথা বলেন রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী। তিনি উদাহরণ স্বরূপ বলেন আজকের দিনে যে ওবিসি মানুষটা যিনি নাপিতের বংশে পরম্পরায় কাজ করেন সিল সম্প্রদায়ের। কিন্তু সেই নাপিত সম্প্রদায় ভুক্ত মানুষেরা পিছিয়ে পড়ছে যার কারণে সেটা হলো নাপিতের পেশাটা কেড়ে নিচ্ছে হাবিবের সেলুন শাহনাজ এর সেলুন। তারা কেরে নিচ্ছে।

ফলের নাপিত সম্প্রদায়ের মানুষরা তারা বঞ্চিত হচ্ছে। দেবশ্রী চৌধুরী বলেন যার ঠাকুরদা দর্জির দোকান চালাতো তার দোকানটা আজকে সে অর্থের কারণে সাত পাচ্ছে না। কেউ সহযোগিতা করছে না। ফলে সেই দোকান থেকে সেই ব্যক্তি আয় উন্নতি করতে পারছে না। তাহলে ঠাকুরদা ছিল দর্জি বাবাও কোনো রকম দু পাঁচ হাজার আয় করে চলছিলেন কিন্তু নাতির বেলায় এসে সেই দর্জির দোকানটা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। সেরকমই কুমোর, কামার ডালিকুলো যারা বানায় যেসব মানুষ পরিবারগুলো এরা কোনরকম সাত পারছে না সহযোগিতা পাচ্ছেনা। আর যার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি বললেন যারা যুগ যুগ ধরে বংশ-পরম্পরায় এই কাজগুলো করে আসছেন সেই পেশার মানুষদের ভারত সরকার সহযোগিতা করবে। তাদেরকে ট্রেনিং দিবে। ট্রেনিং চলাকালীন ১৫ দিনে সাড়ে ৭ হাজার টাকা পাবে তারা । যেই পেশায় ট্রেনিং দেবে তাকে আধুনিক যন্ত্রপাতি কেনার জন্য বাইশ হাজার টাকা। তার সঙ্গে তাদেরকে এক লাখ টাকা স্বল্প সুদে ঋণ দেবার ব্যবস্থা করেছে। মঙ্গলবার এই ও বি সির সামাজিক সন্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির ও বি সি মোর্চার রাজ্য সভাপতি অজিত দাস,রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী,উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি বাসুদেব সরকার সহ রাজ্য ও জেলার বিজেপির নেতৃত্বরা। রায়গঞ্জের সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী বলেন এই রাজ্যটায় শুধু মাত্র চুরি করার দিকে নজর দেওয়া ছাড়া ও বি সি মাইনরিটি বাসিন্দাদের জন্য কোন কাজ করা হয়নি।আপনারা হাত তুলে বলুন কেও কোন রকম সাহায্য পেয়েছেন কি? তার উত্তরে ঝেড়ে সবাই একবাক্যে বলেন তারা এই সরকারের কোন সুযোগ সুবিধা পায়নি।সরকারের সুযোগ সুবিধা সমস্ত কিছুই ভোগ করেছে তৃণমূলের সমর্থকেরা। রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী বলেন এই রাজ্য থেকে এই সরকারের উৎখাতের সময় হয়ে গিয়েছে।অনেক সহ্য করেছেন সামান্য ধৈর্য্য ধরুন সবুরে মেওয়া ফলে।রাজ্য বিজেপির ও বি সি মোর্চার সভাপতি বলেন সারা রাজ্যে থেকে দিদির যাবার ঘণ্টা বেজে গেছে।এরা শুধু সন্দেশখালিতেই সব খালি করেনি।এরা গোটা রাজ্যে খালি করে দিয়ে চলে যাবে।এই সমস্যার সমাধান একমাত্র মোদী সরকার ছাড়া কারো করবার ক্ষমতা নেই।ও বি সি মোর্চার সামাজিক সন্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি বাসুদেব সরকার।সভায় মহিলাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *