December 9, 2022

পানীয় জলের সমস্যা মেটাবে গ্রাম পঞ্চায়েত এটিমের মাধ্যমে উত্তর দিনাজপুরে

1 min read

তন্ময় চক্রবত্তী ঃ–  কোন  দিন  কি শুনেছেন এটিমের মাধমে আপনি পাবেন জল । এবার সেটাও পাবেন ।আর বেশি দেরি নয় । এই মাসের উদ্বোধন হতে চলেছে এই ওয়াটার এটিএমের । উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপোখর গোয়াগাঁও ২ গ্রাম পঞ্চায়েতে । এক লিটার জলের  দাম মাত্র  এক   টাকা । আর সেতা মিলবে এটিএমে ।

 ফলে  খুশি বাসিন্দারা। জেলার মধ্যে পিছিয়ে পড়া এলাকাগুলির মধ্যে অন্যতম  গোয়ালপোখর এলাকা । জলে আর্সেনিক পাওয়া গেছে এই এলাকায় প্রশাসন সূত্রে খবর। প্রায়ই পেটের  রোগ-সহ বিভিন্ন রোগে ভোগেন বাসিন্দারা পরিশুদ্ধ পানীয় জলের অভাবে ।  জলের সমস্যা মেটেনি বাসিন্দাদের এর আগে এখানে মার্ক টু টিউবয়েল বসানো হলেও । প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে সে জন্যই এমন উদ্যোগ  । প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে জেলার মধ্যেই এই পঞ্চায়েতেই প্রথম এমন ওয়াটার এটিএম বসানো হয়েছে

মোট চার লক্ষ ৭৭ হাজার  টাকার এই প্রকল্প। এক টাকার কয়েন দিলেই এক লিটার পানীয় জল পাওয়া যাবে। ৫ টাকায় পাওয়া যাবে পাঁচ লিটার জল। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতিদিন এক হাজার লিটার জল সরবরাহ করা হবে। সব গ্রাম পঞ্চায়েত এই প্রকল্প চালু করা যায় কি না তা নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে।গোয়াগাঁও ২ পঞ্চায়েতের প্রধান, তৃণমূলের কাশীনাথ সিংহ বলেন, ‘‘পানীয় জলের এটিএমের কাজ শেষ। উদ্বোধনের অপেক্ষায় সকলে। চলতি মাসে এই এটিএম চালু হতে চলেছে।’’কাশীনাথবাবু বলেন, পানীয় জলের সমস্যার জন্য পেটের রোগ ডায়েরিয়া-সহ নানা রোগ দেখা দেয়।

 অর্থনৈতিক ও সামাজিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া এই এলাকার মানুষ বাধ্য হয়ে বাজারের জল কিনতে বাধ্য হন। কিন্তু সেই জলও কতটা পরিশুদ্ধ তা নিয়ে কিন্ত সন্দেহ থেকে যাচ্ছে। তাছাড়া সবার পক্ষে এই জল কেনার মতো উপায় নেই। তাই এতে খুবই সুবিধে হবে। এই এলাকায় পানীয় জলের খুব সমস্যা।মাত্র দুকিলোমিটার  এই এলাকা থেকে ভারত বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকার দূরত্ব । সেখানে বিএসএফের চৌকি রয়েছে। তাঁরাও জলের সমস্যায় ভুগছেন। এই পরিষেবা দেখে  খুশি তাঁরাও।এলাকার বাসিন্দা সুভাশ  দাস  বলেন, ‘‘সত্যি জলের জন্য এ টি এম খুব ভালো খবর আমাদের এলাকার জন্য। তবে দাবি জানাব ১ টাকায় ২ লিটার জল দেওয়া হোক। ৫ টাকায় ১০ লিটার জল। আর্থিক দিক পিছিয়ে পড়া এলাকার মানুষদের কথা বিবেচনা করার দাবি জানাব।’’গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের দাবি, ‘‘ব্যবসার জন্য নয় এই প্রকল্প। মানুষের সেবা দেওয়া মূল লক্ষ্য। মানুষ পরিশুদ্ধ পানীয় জল পাবেন সেটা বড় কথা। মানুষের দাবি অবশ্য বিবেচনা করা হবে।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *