November 30, 2022

ত্রিস্তর বিপিএল টুর্নামেন্ট ২০১৮ প্রস্তুতি নিয়ে ময়দান সরগরম

1 min read

জয়ন্ত বোস , বর্তমানের কথা। ওয়ানডে  টুর্নামেন্ট আসর। এখনো অবধি ঘোষনা হয় নি নির্ধারিত টুর্নামেন্টের দিন। যে কোন দিন এই টুর্নামেন্টের আয়োজক দিন ঘোষনা করবেন।  এই মূহূর্তে সর্বত্র আলোচিত  ওয়ানডে পলিটিক্যাল টুর্নামেন্ট বিপিএল – বেঙ্গল পঞ্চায়েত লিগ। ত্রিস্তর পঞ্চায়েত – গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি, জেলা পরিষদ এই তিন স্তর নিয়ে পঞ্চায়েতি ব্যাবস্থায় গ্রাম্য মানুষের কাছে উন্নয়নের পরিকাঠামো পৌঁছে দেয়ার একটি ত্রিস্তরিয় পদ্ধতি । 
পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ব্যাবস্থা দেশের মধ্যে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছে। প্রতি পাঁচ বছর অন্তর একটি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে কোন দল সংখ্যা গরিষ্ঠতা নিয়ে ত্রিস্তরিয় পঞ্চায়েত ব্যবস্থা পরিচালনা করবে তা নির্ভর করে। আর প্রতি পাঁচ বছর অন্তর বেঙ্গল পঞ্চায়েত লিগ নিয়ে বিভিন্ন দলগুলি অনেকদিন আগে থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দেয় তেমনি  এবারেও শুরু করে দিয়েছে এবং প্রতিটি দলের সমর্থকেরা প্রতি পাঁচ বছর অন্তর নতুন উদ্দীপনায় তাদের দল কে বিশেষ করে তাদের দলীয় প্রতিনিধিদের  জিতিয়ে আনতে তারাও ময়দানে।
 বিপিএল টুর্নামেন্টের দলগুলি টিএমসি, বিজেপি, বামফ্রন্ট, কংগ্রেস মুলত প্রধান দলগুলি  এবং দলের বাহিরেও নির্দল নামক টীমের ম্যানেজমেন্ট যারা  বিদ্রোহী সমর্থকদের সাপোর্টে বড় দলগুলির প্লেয়ারদের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারে কোন সন্দেহ নেই। ২০১৮ বেঙ্গল পঞ্চায়েত লীগে এবারের আকর্ষন এক অন্য মাত্রা পেতে চলেছে। অন্যান্ন জেলার  পাশাপাশি উত্তর দিনাজপুর জেলায়  বিপিএল টুর্নামেন্ট নিয়ে ময়দান সরগরম হতে শুরু করে দিয়েছে এবং উত্তর দিনাজপুরে প্রতিটি ব্লক ময়দানের মধ্যে কালিয়াগঞ্জ ব্লক ময়দানের সরগরম টা  একটু অন্য মাত্রা পেতে পারে বলে দর্শকদের অনেকাংশের মত । 
  মোট ৮টি গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৪৮ টি আসন  ,  প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে ৩টি করে মোট ২৪টি পঞ্চায়েত সমিতির আসন  এবং জেলা পরিষদের মোট ৩টি আসন। গ্রাম পঞ্চায়েত গুলি  ১ নম্বর অনন্তপুর , ২ নম্বর ধনকোল , ৩ নম্বর রাধিকাপুর , ৪ নম্বর বোচাডাঙগা , ৭ নম্বর ভান্ডার , ৮ নম্বর মুস্তাফা নগর, ৯ নম্বর বরুনা , ১০ নম্বর মালগাও। গত বিপিএল টুর্নামেন্ট এ বেশিরভাগ গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি , কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদের ৩টি আসনেই বামফ্রন্টের ঝড়ো ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং এর কাছে অন্য দলগুলো দাঁড়াতেই পারেনি । 
পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক ময়দানে ৩৪ বছরের পট পরিবর্তন ঘটে গিয়েছিল ২০১১ সালে তথাপিও কালিয়াগঞ্জ ব্লকের ময়দান
ে বিপিএল টুর্নামেন্টে বামফ্রন্টের দলগত পারফরম্যান্স ছিল নজর কারার মতো। কিন্তু যত দিন গরিয়েছে বামফ্রন্টের, কংগ্রেসের প্লেয়াররা দলবদল করে টিএমসি দলে নাম লিখিয়েছেন তবে ২০১৮ বিপিএল   টুর্নামেন্টে কালিয়াগঞ্জ ব্লকের সাথে সর্বত্রই টিএমসি দলে এইবার কোন প্লেয়ারদের প্রথম একাদশে সুযোগ দেয়া হবে এই নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট যেমন কঠিন পদক্ষেপ নিবেন তেমনি প্লেয়ারদের মধ্যেও অঙ্ক কষা শুরু হয়ে গেছে আর এই সুযোগের অপেক্ষায় ফ্লুক পারফরম্যান্স এ উঠে আসা বিজেপি দল বসে আছে। কংগ্রেস ও বামফ্রন্ট দলের টীম ম্যানেজমেন্ট এক কথায় দিশেহারা তবে উভয়ের ম্যানেজমেন্ট শেষ পর্যন্ত স্যান্ডউইচ টিম ময়দানে নামালেও নামাতে পারেন। ময়দান সরগরম হলেও আগামী ১লা এপ্রিল থেকে মাঠ কাঁপানো সরগরমে বেঙ্গল পঞ্চায়েত লিগ এবার জমে যে উঠবেই সেই বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই। বিশেষ করে এবারের টুর্নামেন্টে ফুল ফর্মে থাকা টিএমসি দলের ফিল্ডিং নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট এর একটা দুশ্চিন্তা আছে।  বেশ উপভোগ করবে এবারের দর্শক। সকলের পারফরম্যান্স কিন্তু দর্শকদের উপর নির্ভরশীল কারন এই টুর্নামেন্টের নাম যে বিপিএল – বেঙ্গল পঞ্চায়েত লিগ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *