December 9, 2022

বিজেপি কর্মীদের দ্বারা তৃণমূল নেতা অসীম ঘোষের বাড়িতে ইটবৃষ্টি,ভাঙচুর ক্লাব,ঘটনাস্থলে গভীর রাতে এস পি

1 min read
তপন চক্রবর্তী – শুক্রবার রাতে কালিয়াগঞ্জ থেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়ে ফিরবার পথে তরঙ্গপুরে বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা সৈনিক ক্লাবের সমর্থকদের উপর হামলা করার। কম বেশি বেশ কয়েকজন অল্পবিস্তর আহত হয়।এরপর বিজেপির আদিবাসী সদস্যরা তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক অসীম ।ঘোষের বাড়ির সামনে এসে তান্ডব নৃত্য শুরু করে দেয়।চলে অসীম ষে লক্ষ করে প্রচণ্ড গালাজ।এর পর শুরু হয়ে যায় এলোপাথাড়ি ইটবৃষ্টি। নিমেষের মধ্যে এই খবর থানায় গেলে খবর পেয়েই বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে কালিয়াগঞ্জ থানার আই সি বিচিত্র বিকাদ রায় ্তরঙ্গপুরে  ঘটনা স্থলে পৌঁছে যায় বলে জানা যা

যায়। খবর পেয়ে গভীর রাতেই চলে আসেন উত্তরদিনাজপুর জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিং।তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক অসীম ঘোষ বলেন অল্পের জন্য তিনি ও তৃণমূল নেতা তপন দেবসিং প্রাণে বেঁচে গেছেন বলে জানালেন। অসীম বাবু বলেন তিনি ও তপন দেব সিং তরংপুরের দলীয় কার্যালয় থেকে বাড়ির সামনে এসে দেখতে পান বিজেপির সমর্থকেরা পার্শ্ববর্তী সৈনিক ক্লাবে ঢুকে তান্ডব চালাচ্ছে।ক্লাব ঘরের যথেষ্ট ক্ষতি করে ক্লাবের বেশকিছু সদস্যদের উপর আক্রমণ সানিয়েছ।আমরা দুজন সঠিক সময়ে ঘরের মধ্যে না ঢুকে পরলে বড়সড় একটা বিপদের মধ্যে পড়তে হত বলে অসীম বাবু জানান।তপন দেবসিং বলেন অল্পের জন্য বেঁচে গেছি।আদিবাসীদের দ্বারা পরিকল্পিত ভাবে আমাদের উপর আক্রমণ করিয়েছে বলে অসীম বাবু ও তপন বাবু জানান।জেলা পুলিশ সিপার শ্যাম সিং অসীম বাবুকে বলেন এই ঘটনার সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের পুলিশ অবশ্যই খুব শিঘ্রই তিনি গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হবেন বলে অসীম বাবুকে আশ্বস্ত করেন।রাজ্য তৃণমূল সম্পাদক অসীম ঘোষের উপর এই আক্রমনের ঘটনাকে সবাই ধিক্কার জানিয়েছে।কালিয়াগঞ্জ পৌর সভার পৌরপতি কার্তিক পাল খবর পেয়েই দ্রূত চলে যায় তরঙ্গপুরের  অসীম ঘোষের বাড়িতে।কার্তিক পাল বলেন বিজেপির নেতারা পরিকল্পনা করেএই জঘন্যতম ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে মনে করেন।আমরা এই ঘটনার জন্য কালিয়াগঞ্জ ব্লকের তৃণমূল সভাপতি দাধিমোহন দেবশর্মা এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে বলেন  শান্ত কালিয়াগঞ্জ কে অশান্ত কিভাবে করা হচ্ছে তা এই ঘটনাই প্রমান।কালিয়াগঞ্জ শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি জয়ন্ত সাহা বলেন যারা কাপুরুষ তারা রাতের অন্ধ্ কারেই এই ধরনের কাজকর্ম করতে অভ্যস্ত।তিনি অবিলম্বে এই ঘটনার সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের দৃষ্টানন্তমূলক শাস্তির দাবি ও ধীক্কার জানান।অপর দিকে এক প্রশ্নের উত্তরে বিজেপি নেতা রুপক রায় বলেন এটা একরকম সাক দিয়ে মাছ ঢাকার মত ঘটনা তৈরি করা হয়েছে বলে তিন মনে করেন। বিজেপি মনোনয়ন দিতে না পাড়ায় এরা এসব মেনে নিতে পারছেনা।তাই যেমন তেমন করে গল্প বানানোর চেষ্টা চলছে।মানুষ এসব আর খায়না। বিজেপির ঘাড়ে কোন না কোন দোষ চাপাতেই হবে।কিছু না চাপালে ওরা খুব অসুবিধায় আছে। তাই তৃণমূলের এই অভিযোগ সম্পুর্ন ভিত্তিহীন বলে রুপক রায় মনে করেন।জানা যায় এই ঘটনার সাথে জুলত অভযোগে 5জনকে ইতিমধ্যে ই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বলে জানা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *