August 16, 2022

ঘরে ঢুকেই চমকে গেলেন স্বামী, পরপুরুষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় শুয়ে স্ত্রী! অপমানে আত্মঘাতী গৃহবধূ

1 min read

ঘরে ঢুকেই চমকে গেলেন স্বামী, পরপুরুষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় শুয়ে স্ত্রী! অপমানে আত্মঘাতী গৃহবধূ

বিছানায় পর পুরুষের সঙ্গে স্ত্রীকে আপত্তিকর অবস্থায় হাতেনাতে ধরে ফেলেছিলেন স্বামী। এরপরই স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ব্যাপক বচসা হয়। পরে বিষয়টি জানাজানি হতেই গ্রামে বসে সালিশি সভা। এদিকে সালিশি সভার পরের দিনই বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ (Housewife commits suicide) উদ্ধার হল।এ ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বালুরঘাটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বালুরঘাট (Balurghat) থানার পুলিশ। পরে পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে তা ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালের পুলিশ মর্গে পাঠায়। মৃতার বাড়ি বালুরঘাট ব্লকের অমৃতখন্ড গ্রাম পঞ্চায়েতের পন্ডীতপুরে।

এ ঘটনায় মৃতার পরিবারের তরফে বালুরঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন বালুরঘাট থানার পুলিশ।এদিকে এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী নকুল দেবনাথকে বালুরঘাট থানা চত্বর থেকে আটক করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, প্রায় বছর তিনেক আগে পেশায় দিনমজুর নকুল দেবনাথ কামারপাড়ার ওই তরুণীকে বিয়ে করেন। তাদের একটি দু’বছরের কন্যা সন্তানও রয়েছে। দিনমজুর ও ভ্যান চালানোয় রোজ দিনই অনেক রাতে বাড়ি ফিরেন নকুল দেবনাথ। অভিযোগ, গত বৃহস্পতিবার রাতে কাজ থেকে ১১ টার পর বাড়ি এসে দেখেন বিছানায় প্রতিবেশী এক যুবকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় শুয়ে আছেন স্ত্রী। এমন দৃশ্য দেখে চুপ করে থাকতে পারেননি নকুল। সঙ্গে সঙ্গে সকলকে ডেকে ঘটনার কথা খুলে বলেন তিনি। গ্রামবাসীরাই আটক করে রাখে প্রতিবেশী যুবককে।সূত্রের খবর, ওই দিন রাতেই ব্যাপক বচসা হয় দেবনাথ দম্পতির। উত্তেজনাও তৈরি হয় গোটা এলাকায়। শুক্রবার গ্রামের মোড়লদের নির্দেশে বসে সালিশি সভা। সেখানেই নিজের ভুল স্বীকার করে ওই গৃহবধূ। শেষ পর্যন্ত স্ত্রীকে ঘরে রাখতেও রাজি হন নকুল। কিন্তু, তারপর সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও রাত পোহাতে না পোহাতেই এ ঘটনায় দেখা গেল নয়া মোড়। শনিবার সকালে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ওই গৃহবধূ গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন। খবর যায় পুলিশে। পুলিশ গিয়েই মৃত দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠায়। এরপরেই মৃতার বাপের বাড়ির তরফে বালুরঘাট থানায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরপরই স্বামীকে আটক করে পুলিশ। লোকলজ্জার ভয়েই ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান পুলিশের। বালুরঘাট থানার আইসি অসীম গোপ বলেন, “অভিযোগ পেয়েছি।মৃতার স্বামীকে আটক করা হয়েছে। পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে”।

Leave a Reply

Your email address will not be published.