August 20, 2022

খরচ করলেন না একটা শব্দও ,প্রায় ৪ ঘণ্টা পর CBI দফতর থেকে বেরোলেন পার্থ

1 min read

খরচ করলেন না একটা শব্দও ,প্রায় ৪ ঘণ্টা পর CBI দফতর থেকে বেরোলেন পার্থ

সূত্রের খবর, তাঁকে দু’দফায় প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কীভাবে উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হয়েছিল, কেন ও কার নির্দেশ গঠন করা হয়েছিল, কীভাবে কাজ করত – সেই সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়। তবে নিজাম প্যালেস থেকে বেরিয়ে একটাও শব্দ খরচ করেননি পার্থ।প্রায় চার ঘণ্টা পর সিবিআইয়ের দফতর থেকে বেরিয়ে গেলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, তাঁকে দু’দফায় প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে নিজাম প্যালেস থেকে বেরিয়ে একটাও শব্দ খরচ করেননি পার্থ। সোজা গাড়িতে উঠে চালকের পাশে বসে পড়েন।বুধবার কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে রক্ষাকবচ না পাওয়ার পর বিকেল ৫ টা ৪২ মিনিটে নিজাম প্যালেসে আসেন পার্থ। সেখানে কোনও কথার উত্তর না দিয়ে লিফটে উঠে যান।

তারপর রাত সাড়ে ন’টা নাগাদ নিরাপত্তারক্ষীদের ঘেরাটোপে বেরিয়ে আসেন রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী। গাড়িতে বসতেই নিজাম প্যালেস থেকে বেরিয়ে যায় পার্থের গাড়ি। আপাতত যা খবর, তাতে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারের পিছন দিয়ে গিয়ে মাঝেরহাট সেতু হয়ে যাবেন পার্থ। কোথায় যাবেন, তা অবশ্য স্পষ্ট নয়।কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর, সন্ধ্যা ছ’টা থেকে দু’দফায় পার্থকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

প্রথম দফায় উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তারপর তদন্তকারী আধিকারিকের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়েন পার্থ। সাড়ে তিন ঘণ্টার ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদ পর্বে এসএসসি নিয়োগে দুর্নীতি নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয় রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে।সূত্রের খবর, কীভাবে উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হয়েছিল, কেন ও কার নির্দেশ গঠন করা হয়েছিল, কীভাবে কাজ করত – সেই সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়। মেধাতালিকায় যাঁরা নিচের দিকে ছিলেন, তাঁদের চাকরি দেওয়া হয়েছে কেন, তাও জানতে চাওয়া হয় বলে সূত্রের খবর।সিবিআই সূত্রে খবর, অধিকাংশ প্রশ্নের জবাবে পার্থ দাবি করেছেন যে নিয়ম মেনে হয়েছে।

 

 

কয়েকটি প্রশ্নের জবাবে আবার প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী দাবি করেছেন যে বিষয়টি তাঁর মনে নেই। সেই পরিস্থিতিতে একটি মহলের দাবি, পার্থ কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে।তবে পার্থকে ফের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হবে কিনা, সে বিষয়ে সিবিআইয়ের তরফে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। সূত্রের খবর, কমিটির সদস্যদের বয়ানের সঙ্গে পার্থের উত্তর মিলিয়ে দেখা হবে। তারপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে যে পার্থকে ফের জিজ্ঞাসাবাদের ডাকা হবে কিনা।দিনভর পার্থ পর্ববুধবার সকালে হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চ পার্থকে সন্ধ্যা ছ’টার মধ্যে সিবিআইয়ের কাছে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়।

 

সেই বেঞ্চের নির্দেশের পরই তড়িঘড়ি ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হন পার্থ। দুপুর তিনটে ৩০ মিনিটে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের ডিভিশন বেঞ্চে মামলাটির শুনানি হওয়ার কথা ছিল। যদিও মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ না হওয়ায় কিছুটা সময় নেন চেয়ে পার্থের আইনজীবী। কিন্তু বিকেল চারটে ৩০ মিনিটে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়নি।সেই প্রেক্ষিতে পার্থের মামলা গ্রহণ করতে অস্বীকার করে ডিভিশন বেঞ্চ। জানানো হয়, যে মামলা দায়ের হয়নি, সেই মামলার শুনানি হবে না। যে আর্জিতে পার্থের তরফে জানানো হয়, প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী সিবিআইযের দফতরে হাজিরা দিতে প্রস্তুত। গ্রেফতারির মতো পদক্ষেপ যাতে করা না হয়, সেজন্য রক্ষাকবচের আর্জি জানানো হয়েছিল। কিন্তু সেই রক্ষাকবচ পাননি পার্থ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.