August 17, 2022

কালিয়াগঞ্জ এর আট নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে আট নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার

1 min read

কালিয়াগঞ্জ এর আট নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে আট নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার

তন্ময় চক্রবর্তী, উত্তর দিনাজপুর

সামনেই পৌর সভার নির্বাচন ।আর এই নির্বাচনে এবার সবচেয়ে নজর করা ওয়ার্ড কালিয়াগঞ্জ এর আট নম্বর ওয়ার্ড।কারন একটাই এই ওয়ার্ড থেকে বিগত দিন জন প্রতিনিধি হয়ে ছিলেন প্রাক্তন পৌরপতি  কার্তিক চন্দ্র পাল ।তাই এবার সেই কার্তিক চন্দ্র পালের বিরুদ্ধে কাকে প্রার্থী করবে সে নিয়ে ইতিমধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস হিমশিম খেয়ে গিয়েছে।বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জনের নাম শোনা যাচ্ছে।এমন ভাবেই এবার নাম শোনা  গেল  এই  আট নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার এর নাম । শুধু তাই নয় ইতিমধ্যে   তিনি অনেক টাই এগিয়ে গিয়েছেন অন্যান্য  সব প্রার্থী কে টপকে  এমন  টাই  সুত্রে খবর ।

এদিকে খেলার ময়দানে যখন নেমেছি তখন তো  খেলা হবে । আমি ৮ নম্বর ওয়ার্ড থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের এবারের প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে একজন দাবিদার। আমি আমার বায়ো ডাটা দলের কাছে জমা দিয়েছি।হার জিত যাই হোক না কেন ।এতে আমার মন খারাপের কিছু নাই। আমি আমাদের ওয়ার্ডের দাঁড়াতে ইচ্ছুক। আমি মানসিক ভাবে তৈরি আছি।মানুষ আমাকে ভালোবাসে ।আজ এক টেলিফোনে সাক্ষাৎকারে এই কথা বললেন কালিয়াগঞ্জ এর জনপ্রিয় আট নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার।এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন তার পরিবার তৃণমূলের পরিবার। বহুদিন ধরে তিনি তৃণমূল করেন। পরিতোষ বাবু বলেন দলের প্রতি আস্থা রয়েছে দল সঠিক বিবেচনা করবে। এক্ষেত্রে আমাকে যদি দল প্রার্থী করে তাহলে আমি মানসিকভাবে তৈরি রয়েছি। আর অন্যদিকে অন্য কাউকে যদি টিকিট দেয় সেক্ষেত্রেও আমরা দলের হয়ে খাটা খাটনি করব।তিনি বলেন যেহেতু খেলার মাঠে নামা হচ্ছে তাই মানসিক ভাবে সবাই তৈরি আমরা ।

এখানে খেলার মাঠে নামার আগে অত চিন্তা করে লাভ নেই ।খেলায় হার জিত যাই হোক না কেন ।আমি দাড়ানোর জন্য মানসিক ভাবে তৈরি হয়ে আছি।পরিতোষ বাবু বলেন ,প্রবীর মহাপাত্রর নাম শোনা যাচ্ছে এই ওয়ার্ড এ নাকি তিনি ও দাড়াবেন। কিন্তু প্রশ্ন একটাই উনি তো আমাদের ওয়ার্ড এ ছিলেন না ।

উনি বাইরেই  ছিলেন ।কিন্তু সাত নম্বর ওয়ার্ডে ওনার বাড়ি রয়েছে পুরনো। কিন্তু সক্রিয় ভাবে কোনদিন ও তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনীতিতে তাকে দেখা যায় নি।পরিতোষ বাবু বলেন পবির বাবু নাকি বিভিন্ন জায়গায় বলে বেড়াচ্ছেন তিনি নাকি সক্রিয় ভাবে তৃণমূলের রাজনীতি তে ছিলেন ।কিন্তু তিনি কোন দিন ও দেখেন নি পবির বাবুকে সক্রিয়ভাবে রাজনীতি করতে। তিনি বলেন এ ব্যাপারে ওয়ার্ডের মানুষ বলাবলি করছে যে যে মানুষ কোন দিন ও তৃণমূলের সঙ্গে থেকে রাজনীতি করেন নি তিনি আবার ভোটের আগে কি ভাবে সক্রিয় তৃণমূলের কর্মী হয়ে গেলেন ।পরিতোষ বাবু সবশেষে বলেন তিনি দাড়ানোর জন্য প্রস্তুত হয়ে আছেন । এখন দল কি করবে সেটা দলের ব্যাপার।তিনি বলেন ওয়ার্ড এর প্রতিটা মানুষের সঙ্গে তার দীর্ঘ দিনের সু সম্পর্ক রয়েছে।মানুষ ই চাচ্ছে তাকে ।তাই সাধারন মানুষের কথা চিন্তা করে আমি আমার বায়োডাটা জমা দিয়েছি।এখন দল কি করবে সেটা দলের ব্যাপার ।এদিকে এই প্রতিবেদক বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পারছে এই ওয়ার্ড এ বহু তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা পরিতোষ সরকার কে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায়। আর তার জন্য স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব থেকে জেলা নেতৃত্তের কাছে বারবার আবেদন-নিবেদন করেছে এলাকার তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা।এদিকে এই প্রতিবেদক ওয়ার্ডের বিভিন্ন মানুষের সাথে কথা বলে জানতে পারে পরিতোষ সরকার একজন স্বচ্ছ ভাবমূর্তি সম্পন্ন মানুষ। দীর্ঘদিনের তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী। সক্রিয় রাজনীতিতে তার অংশগ্রহণ রয়েছে। সাধারণ মানুষের পাশে দেখা যায় সব সময়। তাই সাধারন মানুষরা কোন বহিরাগত নয় এলাকার পরিতোষ সরকারকেই তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায় ।এদিকে বিশেষ সূত্রে জানা যায় আট নম্বর ওয়ার্ডের ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন। এখন দেখার বিষয় আগামী দিনে তৃণমূল কংগ্রেস এই ওয়ার্ড থেকে কোন বহিরাগত কে প্রার্থী করে নাকি এই ওয়ার্ড এর স্বচ্ছ ভাবমূর্তি সম্পন্ন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট পরিতোষ সরকার কে প্রার্থী করে কিনা সেটাই এখন দেখার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.