August 9, 2022

অবশেষে সমস্ত জল্পনা কল্পনার অবসান , শাসক বিরোধী চাপানউতরের মধ্যেই আজ শেষ হাসি হাসল বিজেপি

1 min read
তপন
চক্রবর্তী
:-  অবশেষে
সমস্ত জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে উত্তরদিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জে বিজেপি
বামফ্রন্ট এবংকংগ্রেসের সমর্থকেরা তৃণমূলের কোনরকম বাধা বিঘ্ন ছাড়াই অত্যন্ত
শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্য দিয়েই তাদের নিজ নিজ দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র জমা
দিল কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির অফিসে গিয়ে।জানা যায় গত
1লা এপ্রিল থেকে4ঠা এপ্রিল তৃণমূল একমাত্র তাদের দলীয় প্রার্থীদের
মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া ছাড়া অন্য কোন রাজনৈতিক দলের প্রাথীদের
 কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত
সমিতির ধারে কাছে যেতে দেয়নি বলে জানান বিজেপির বি
গত বিধানসভার প্রার্থী তথা
বিজেপির কালিয়াগঞ্জ বিধান সভা এলাকার পালক রুপক রায় ।

তাই বিজেপি নেতৃত্ব সিদ্ধান্ত
নেয় তারা
 কোনভাবেই
শাসক তৃণমূল দলকে গণতন্ত্রের কবর খুঁড়তে
 দেবেনা। গণতন্ত্রকে
বাঁচিয়ে রাখার জন্য তাদের যা করণীয় তাই তারা করবে।এতে যদি জীবন দিতে হয় সেও

ভালো।কথা অনুসারে কাজ।শুক্রবার সকাল থেকে বিজেপির দলীয় প্রাথীদের মনোনয়ন পত্র জমা
দিতে যাবার জন্য মহেন্দ্রগঞ্জ নাট মন্দির চত্বরে কালিয়াগঞ্জ ব্লকের আটটি অঞ্চল
থেকে কয়েক হাজার দলীয় সমর্থকদের জমায়েত করে লাঠি সোডা তীর ধনুক নিয়ে কালিয়াগঞ্জ
পঞ্চায়েত সমিতির দিকে সুশৃঙ্খল মিছিল সহকারে মনোনয়ন পত্র জমা দেবার জন্য রওনা
দেয়।বিজেপির উত্তরদিনাজপুর জেলার সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী অমিত সাহা বলেন আমরা
সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম শাসক তৃণমূল দলের কাছে তারা কোনভাবেই আত্মসমর্পন করবেনা।



 তাতে
যতই বাঁধা আসুক। বিজেপির রাজ্য মহিলা সেলের সহ-সভানেত্রী দোলা মোদক বলেন তৃণমূলের
এই অগণতান্ত্রিক কাজকর্মের ফল এবার ভোটের বাক্সেই পেয়ে যাবে।আমরা আজ কালিয়াগঞ্জের
বিজেপি দল পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রথম রাউন্ডে শাসক তৃণমূল দলকে হারিয়ে মনোনয়ন পত্র
জমা দেবার গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা করতে পেরেছি বলে জানান।

এই জয় কালিয়াগঞ্জ
ব্লকের গণতন্ন্ত্রপ্রিয় মানুষদের জয়।শুক্রবারের বিজেপির মিছিলে কালিয়াগঞ্জের
বিশিষ্ট বিজেপি নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রানা প্রতাপ ঘোষ
,গৌরাঙ্গদাস পার্থ মজুমদার,দুলাল চন্দ্র রায়,অভিজিৎ দে সরকার,দোলা মোদক,পম্পা দেব, সংহমিত্রা
রায় চৌধরী ও সুমি মোহন্ত।অপড়দিকে বামফ্রন্ট একটি বিশাল মিছিল নিয়ে মনোনয়ন জমা দিতে

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
যায় কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত দপ্তরে।বামফ্রন্ট নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিপিএম
নেতা দেবব্রত সরকার
,অতনু
চ্যাটার্জী
,বেলা
চ্যাটার্জী আলমগীর সরকার
,মনা
পাটোয়ারী
 এবং আর এস পি
দলের দেবব্রত কর ও নির্মল সরকার ও কংগ
্রেসের নেতাদের  মধ্যে
ছিলেনউত্তরফিনাজপুর জেলা যুব কংগ্রেসের সম্পাদক সৌম্য দত্ত সহ অনেকেই।বিজেপি
,বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে
কেন্দ্র করে পুলিশি তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মত।

কালিয়াগঞ্জ থানার আইসি বিচিত্র বিকাশ
রায় বলেন মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে কোন রকম অঘটন না ঘটে তার জন্য গোটা
কালিয়াগঞ্জ শহর পুলিশি চাদরে একরকম মোরা হয়েছিল।ছিলনা পুলিশি তৎপরতার কোনরকম
খামতি।কালিয়াগঞ্জ থানার বিকেল বেলায় রায়গঞ্জ ও হেমতাবাদ থেকেও আসে প্রয়োজনীয়
পুলিশের সাথে কমব্যাট ফোর্স। টাউনবাবু অতনু চক্রবর্তী
,এস আই রামচন্দ্র ঘোষ সহ কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ
আধিকারিকদের মধ্যে ছিল ব্যপক তৎপরতা।যদিও কালিয়াগঞ্জ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পৌরসভার চেয়ারম্যান কার্তিক
পাল বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে বলেন বিডিও অফিসের কাছে তৃণমূলের একটি ক্যাম্প
অফিসে বিজেপির দুষ্কৃতিকারীরা অফিসের ভেতর ঢুকে চেয়ার
, টেবিল ভাঙচুর করে
অন্যায়ভাবে। তৃণমূল কয়দিন ধরে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে দিচ্ছেনা অন্য দলগুলোকে এটা
অসত্য কথা।কেও যদি মনোনয়ন পত্র জমা দিতে না আসে তার দায়ভার তৃণমূল দলের উপর পড়তে
পারেনা কোন ভাবেই।তৃণমূলের এই অভি

যোগ অস্বীকার করে বিজেপি
নেতা অমিত সাহা। অমিত সাহা
 পাল্টা তৃণমূল সম্পর্কে  অভিযোগ করে বলেন বিডিও
অফিসের লাগা তিস্তা কলোনিতে তৃণমূলের দুস্কৃতিবাহিনীর দলবল সারাদিন সেখানে থাকার
পর বিকেলে অবৈধভাবে জনগনের দিকে বন্দুক উঁচিয়ে ধরলে জনগনের তারা খেয়ে তারা তিস্তা
কলনীর ভেতরে পালিয়ে বেঁচে যায়।এই ঘটনায় জনগনের রোসে বেশ কয়েকটি বা
ইক
ভাঙচুর হয়। তৃণমূল চাইছে যেনতেন

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
প্রকারে মনোনয়ন পত্র বাতিল করা যায়কিনা।কিন্ত কোন
অবস্থাতেই তৃণমূলকে আমরা এক ইঞ্চি জমি ছেড়ে দেব না।
 শুক্রবার সাধারণ মানুষরা
বলছে তৃন মূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলকে সংঘটিত করবার জন্য যে ভাবে আপ্রাণ
চেষ্টা করে যাচ্ছে বিভ
িন্ন উন্নয়নমূলক কাজের মাধ্যমে ঠিক তার উল্টা কাজ
করে তৃণমূল দলটাকে শেষ করেদেবার একটা চক্রান্ত চলেছে তার দলের একশ্রেণীর কিছু অতি
উগ্র দলীয় সমর্থকরা।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
আর এতে জেলার কিছু তৃণমূল নেতাদের যে ভূমিকা আছে তা অস্বীকার
করবার কোন উপায় নেই।মনোনয়ন পত্র জমা নিয়ে এসব করার কোন প্রয়োজন ছিল বলে তারা মনে
করেনা।কালিয়াগঞ্জের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহ জ্যাকারিয়া বলেন মনোনয়ন পত্র জমা
নেবার কাজ সুষ্ঠ ভাবেই চলছে তবে গভীর রাত পর্যন্ত তা চলবে ।কটা মনোনয়ন পত্র জমা হল
এই মুহূর্তে তা বলা সম্ভব নয়।আগামী কাল সঠিক তথ্য দেওয়া যাবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.