August 13, 2022

উপর মহলের কংগ্রেস-তৃণমূলের জোটের কোন গুরুত্ব নেই,রাজ্যের পঞ্চায়েত ভোটে হাত-হাতুড়ির জোট সর্বত্রই হবে——প্রমথ নাথ রায়

1 min read
তপন চক্রবর্তী–উত্তরদিনাজপুর  সরকারিভাবে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা নাহলেও সম্ভবত -আগামী মে মাসের প্রথম দিকে পঞ্চায়েত নির্বাচন যে হচ্ছেই এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। তাই  সমস্ত রাজনৈতিক দলের সাধারণ কর্মী থেকে রাজনৈতিক নেতৃত্বরা সাধারণ মানুষের মন পেতে ইতিমধ্যেই হিসাব নিকাশ শুরু করে দিয়েছে কোন দলের সাথে কোন দল গাঁটছড়া বাধলে কার কিরকম লাভ অথবা ক্ষতি হতে পারে।আর সেই কারণেই তৃণমূল কংগ্রেস শাসক দল হয়েও অত্যন্ত বিচক্ষন তার সাথে পঞ্চায়েত ভোটে কংগ্রেসকে কাজে লাগিয়ে আবার সময়মত ছুড়ে ফেলে দেবার সিদ্ধান্ত মনে মনে নিয়ে্ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর সাথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একরকম জোট তৈরি করে ফেলেছেন।আর এই সহজ অংকটা কংগ্রেসের একজন অতি সাধারণ কর্মী বুঝতে পারলেও সেকথা ভারতবর্ষের সব থেকে প্রাচীন একটি কংগ্রেসের মত দলের সভাপতি রাহুল গান্ধীর বোঝার মত ক্ষমতা নেই।তাই এ  রাজ্যের কংগ্রেসের সাধারণ কর্মী থেকে ছোট বড় নেতারা সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন যেহেতু গ্রামে গঞ্জে কংগ্রেস কর্মীদের শাসক তৃণমূলের হাতে যে ভাবে মার খেতে হয়েছ এবং হচ্ছে তাতে কোন ভাবেই ক্বগ্রেস তৃণমূলের সাথে পঞ্চায়েত নির্বাচনে জোট করে লড়তে যাবেনা।
গত শনিবার আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন উপলক্ষে উত্তরদিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লক কংগ্রেসের উদ্যোগে কালিয়াগঞ্জের কংগ্রেস কার্যালযে একটি কংগ্রেস কর্মীদের সভা অনুষ্ঠিত হয়।আর এই কর্মী সভায় কোন রাখ ঢাক না রেখেই কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক তথা কালিয়াগঞ্জ ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অধ্যাপক প্রমথ নাথ রায় কংগ্রেস কর্মীদের পরিষ্কার ভাষায় জানিয়ে দেন আমরা যে রাজ্যে বাস করি সেখানকার রাজনৈতিক পরিস্থিতি আমাদের চেয়ে ভালো কে বুঝতে পারে।আমরা শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে পরে পরে মার খাবো আবার ভোট এলেই সেই শাসক দলের সাথে আমাদের জোট করে লড়তে হবে এর থেকে লজ্জার আর কি হতে পারে।
রাজ্যের মানুষ আমাদের দলের নেতাদের  এই সব দুর্ভাগ্যজনক সিদ্ধান্তের কারনে দলের যে চরম ক্ষতি হচ্ছে তা   দলের সভাপতি বা দিল্লির নেতারা তাদের নিজেদের স্বার্থে আমাদের কথা তারা বুঝতে চাননা।তাই আমাদের এলাকার পরিস্থিতি বিচার করেই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমাদের জেলা তথা সারা রাজ্যেই সিপিএম এর সাথে লিখিত জোট না হলেও হাত ও হাতুড়ি এক জোট হয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল ও বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।কংগ্রেস বিধায়ক প্রমথ বাবু বলেন আমরা কালিয়াগঞ্জের আটটি গ্রাম পঞ্চায়েতের ও পঞ্চায়েত সমিতির জন্য প্রাথী বাছাই করবার কাজ শুরু করে দিয়েছি।

তিনি বলেন রাজ্যের শাসক দলের কাজ কর্মে শুধু সাধারণ মানুষই নয় তৃণমূল দলের কর্মী থেকে নেতা অনেকেই দলের ভেতর থেকেই ফুঁসছে।সময় ও সুযোগের অপেক্ষায় র্তারা বসে আছে।তাই এভারের পঞ্চায়েত নির্বাচন অত্যন্ত কঠিন বলেই প্রমথ বাবু
মনে করেন।প্রমথ বাবু কর্মী সভায় বলেন রাজ্যের সর্বত্র শাসক দলের কাজ কর্মে মানুষ বীতশ্রদ্ধ হয়ে পড়েছে।

মানুষ এমন শাসন ব্যবস্থা চায়নি। প্রমথ বাবু বলেন কালিয়াগঞ্জ ব্লকের আটটি গ্রাম পঞ্চায়েতের 148টি,পঞ্চায়েত সমিতির 24টি ও জেলা পরিষদের 3টি আসনের জন্য তাদের অলিখিত হাত-হাতুড়ির জোটের সম্ভাব্য প্রার্থী নির্বাচনের কাজ শুরু করা হয়েছে প্রাথমিকভাবে।জানা যায় কংগ্রেসের কর্মী সভায় উপস্থিত ছিলেন কালিয়াগঞ্জ টাউন কংগ্রেসের ভার প্রাপ্ত সভাপতি সুজিত দত্ত,কংগ্রেস নেতা তুলসী জয়সওয়াল,পঙ্কজ পাল,কালিয়াগঞ্জ ব্লক যুব কংগ্রেস সভাপতি গিরিধারী প্রামানিক,ব্লক মহিলা কংগ্রেসের বর্ষীয়ান সভানেত্রী জাহেদা খাতুন,অজিত সিংহ সহ কালিয়াগঞ্জ ব্লকের বিভিন্ন অঞ্চল সভাপতিগন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.