August 12, 2022

আজ বিশ্ব রেডিও দিবস।

1 min read

আজ বিশ্ব রেডিও দিবস। আসুন না, এই দিনে রেডিওর খুঁটি-নাটিটা একটু জেনে নিই। রেডিও নিয়ে আলোচনা করতে বসলে আজও আমরা প্রত্যেকেই কেমন যেন নস্ট্যালজিকহয়ে যাই। সেই অনুরোধের আসর-শিশুমহল-গল্পদাদুর আসর কিংবা শুক্রবারের সন্ধ্যার সেই টানটান উত্তেজনাপূর্ণ নাটকগুলির টান আজও কি আমরা অনুভব করি না? আর মহালয়ার দিনের কথা? বছরের আর পাঁচটা সাধারণ দিন রেডিওর সঙ্গে খুব একটা সম্পর্ক না থাকলেও ওইদিন ভোরে মহিষাসুরমর্দিনী শোনেন না, এমন বাঙালি বোধহয় আজও পাওয়া যাবে না। শোনা যায়, সরাসরি সম্প্রচারকালে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র মহাশয় নাকি ভোর তিনটের মধ্যে গঙ্গাস্নান সেরে শুদ্ধ হয়ে তবেই এই অনুষ্ঠানে চণ্ডিপাঠ করতে বসতেন। 
হালফিলে ফোন ইনতো শ্রোতাদের সঙ্গে রেডিওর সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যম। জানলে একটু অবাকই হতে হয় এই টেলিফোনের তারের হাত ধরেই কিন্তু প্রথম বেতার সম্প্রচার শুরু হয়েছিল। সেটা টেলিফোন আবিষ্কারের বছর ২০ পরের কথা। গুলিএলমো মার্কোনি নামক এক ইতালিয়ান গবেষক নিজের ঘরে সামান্য কিছু যন্ত্রপাতি নিয়েই শুরু করেছিলেন বিনা তারে শব্দ পাঠানোর কৌশলের অন্বেষণ। এর আগেও অনেকে অনেকবার তা চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু মার্কোনি তা করে দেখালেন। তাই তো তিনি ফাদার অফ লং ডিস্টেন্স ট্রান্সমিশন। তিনি তাঁর আবিষ্কৃত এই যন্ত্রের উন্নতিসাধনে ইতালি সরকারকে অনুরোধ জানান। কিন্তু সেই সরকার এবিষয়টিতে কর্ণপাত না করায় যন্ত্রটির স্বত্ব নিয়েসোজাচলেআসেনইংল্যান্ডে। ভারতে প্রথম রেডিও চালু হয় ১৯২৭ সালের ২৩ জুলাই রেডিও ক্লাব অফ বোম্বে এবং ওই বছরের ২৬ আগস্ট কলকাতা স্টেশনে। তবে সরকারিভাবে রেডিও অনুষ্ঠান শুরু হয় ১৯৩০ সালের ১ এপ্রিল। গোড়ায় অবশ্য নাম ছিল অল ইন্ডিয়া রেডিও। ১৯৫৬ সালে নাম পরিবর্তন করে আকাশবানী করা হয়। অল ইন্ডিয়া রেডিও, খবর পড়ছি…। এই খবর পড়ার যাত্রা শুরু হয় ১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.