March 3, 2024

মাধ্যমিক পাশ করে অলোক তালের সাস বিক্রি করে বৃদ্ধ বাবা-মাকে দেখভাল করছে-

1 min read

মাধ্যমিক পাশ করে অলোক তালের সাস বিক্রি করে বৃদ্ধ বাবা-মাকে দেখভাল করছে-

তপন চক্রবর্তী:শুধু একটা কাজ চাই।সে যে কোন রকম কাজ শ হলেই হবে।তাই জ্যৈষ্ঠ মাসেরপ্রথম দিন থেকেই সুস্বাদু তাল শাসের ব্যবসায় রুজি রোজগারের আশায় ফুট পাথের এক চিলতে জায়গায় বসে তালের সাস দা দিয়ে কেটে বের করে বিক্রি করছে উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহারের নন্দন গ্রামের অলোক সরকার।রবিবার টাটফাটা রোদ্রের সকালে উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ শহরের মহেন্দ্রগঞ্জ বাজারে ইটাহার ব্লকের নন্দন গ্রামের ১৮বছরের যুবক অলোক তাল শ্বাস বিক্রি করছে। কাছে গিয়ে জিজ্ঞাসা করতেই বললো ইটাহারের নন্দন গ্রামে বাড়ি। মাধ্যমিক পাস করে আর সময় নস্ট না করে কিছু একটা করতে হবে মনে করে কিছু একটা করতে নেমে পড়েছি।

যখন যেটা সামনে পাই সেটাকেই আকড়ে ধরে তা থেকে সংসার চালানোর মত প্রতিদিনের খরচ জোগাড় করি।বাবা মা দুই ভাই সবাইকে নিযে আমি ভালো আছি।প্রতিদিন কত গুলো তাল শ্বাস বিক্রি করা হয় তার উত্তরে অলোক জানায় সাতশো টাকার মত প্রতিদিন বিক্রি হয়।খরচখরচা বাদ দিয়ে পাঁচশো টাকার কিছু বেশি টিকে যায়।অলোক জানায় গত কয়েকদিন আগে তাদের নন্দন গ্রামে হাচকা দরে একসাথে ১২টা ছোট তাল সহ গাছ কিনে নিয়েছি ১২০০টাকায়।i ইটাহারের নন্দন গ্রামে প্রচুর তালগাছ। এই তালগাছকে কেন্দ্র করে গ্রামের অধিকাংশ যুবকরা তাল শ্বাসের ব্যবসা করে। অলোক জানায় এই তাল শ্বাসের ব্যবসা অনেকেই করে থাকে। অলোক সরকার তাল তালশাঁস কাটতে কাটতে বলল আমাদের মত ছেলেদের এই সব কাজই ভালো। এইসব কাজ করতে গেলে কাউকে টাকাও দিতে হয় না,কোন রাজনৈতিক দল ও করতে হয়না। সামান্য একটু পুঁজি আর বুদ্ধি থাকলেই সবাই আমরা এই ধরনের ব্যবসা করে খেতে পারি।তাল সাসের ব্যবসা। শেষ হলে আমের ব্যবসা করব। তবে কিছু না কিছু করেই যাবো।তবুও কোন রাজনৈতিক দলের কাছে গিয়ে মাথা নত করবো না বললেন তাল সাস বিক্রেতা অলোক সরকার।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *