March 3, 2024

আশা কর্মীদের সরকারি স্বীকৃতি ও সন্মান জনক বেতনের দাবিতে ডেপুটেশন_

আশা কর্মীদের সরকারি স্বীকৃতি ও সন্মান জনক বেতনের দাবিতে ডেপুটেশন

তপন চক্রবর্তী,কালিয়াগঞ্জ ১৩ ফেব্রুয়ারি:সোমবার উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়া গঞ্জে ব্লকের আশা কর্মীরা রাজ্য সরকারের স্বীকৃতি ও সন্মান জনক বেতনের দাবিতে কালিয়াগঞ্জ স্টেট জেনারেল হাসপাতালের সুপারের দপ্তরে একটি ডেপুটেশন দেন।ডেপুটেশনটি গ্রহন করেন কালিয়াগঞ্জ স্টেট জেনারেল হাসপাতালের সহকারী সুপার সঞ্চারী ভট্টাচার্য।তিনি আশা কর্মীদের দাবি মনোযোগ সহকারে শুনে তাদের দাবি দাওয়ার প্রতি সহানুভূতি জানিয়ে বলেন তিনি তাদের দাবিগুলো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেবেন বলে জানান

।ডেপুটেশন দেবার পূর্বে আশা কর্মীরা সরকারের একটি নির্দেশক তারা আগুন ধরিয়ে দিয়ে অভিনব প্রতিবাদ জানান। বলেন তারা সরকারের এই নির্দেশক কোন ভাবেই মানবে না বলে সরকারকে হুশিয়ারি দেন আশা কর্মী ইউনিয়নের উত্তর দিনাজপুর জেলা সম্পাদিকা মাধবী লতা পাল।তিনি বলেন আমাদের সবরকম কাজ করিয়ে মাসের শেষে সারে চার হাজার টাকা মাত্র ভাতা দেওয়া হয়।পৌর সভার কমিশনার,বিধান সভার এম এল এ দের ভাতা তারা নিজেদের ইচ্ছামত বৃদ্ধি করা হলেও কেন আজ পর্যন্ত আশা কর্মীদের সামান্য ভাতা দিয়ে যাবতীয় কাজ করিয়ে নেওয়া হয়?আমরা তাই ঠিক করেছি আগামী মাধ্যমিক পরীক্ষায় আমরা কোন কাজ করবনা।

তিনি দাবি করেন প্রতিমাসে সান্মানিক ভাতা হিসাবে সরকারকে ২১ হাজার টাকা দিতে হবে। আশা কর্মীদের দাবি তারা স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন কাজের সাথে যুক্ত থাকলেও তারা সেই সম্মানটুকু পান না। পাশাপাশি তারা তাদের ন্যায্য ভাতা পান খুব সামান্য। যে টাকা তারা পান সেই টাকা দিয়ে সংসার চালানো তাদের পক্ষে দুষ্কর হয়ে উঠেছে। তাদের বক্তব্য কি কেন্দ্রীয় সরকার কি রাজ্য সরকার উভয়ই আশা কর্মীদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলা খেলছেন। পাশাপাশি আশা কর্মীরা এদিন বলেন বিধানসভায় এবং পার্লামেন্টে সাংসদ বিধায়ক এবং মন্ত্রীরা নিজেদের বেতন বাড়িয়ে নিলেও আশা কর্মীদের দিকে তারা কেউই তাকান না। অথচ আশা কর্মীদের দিয়ে বিভিন্ন ধরনের কাজ করিয়ে নেয় সরকার।

1 thought on “আশা কর্মীদের সরকারি স্বীকৃতি ও সন্মান জনক বেতনের দাবিতে ডেপুটেশন_

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *