April 20, 2024

হাজার হাজার কোটি টাকা ইনকাম ট্যাক্স কেন্দ্রীয় সরকার নিলেও এই রাজ্য উন্নয়নের দিক থেকে কেন্দ্রীয় প্রকল্পে   বঞ্চিত থাকবে কেন ?  প্রশ্ন করলেন রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী

1 min read

হাজার হাজার কোটি টাকা ইনকাম ট্যাক্স কেন্দ্রীয় সরকার নিলেও এই রাজ্য উন্নয়নের দিক থেকে কেন্দ্রীয় প্রকল্পে   বঞ্চিত থাকবে কেন ?  প্রশ্ন করলেন রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী

 

তনময় চক্রবর্তী পশ্চিমবঙ্গে বিগত দেড় বছরের এক কিমি রাস্তাও কেন্দ্রীয় সরকার অনুমোদন করেনি। অথচ গুজরাটে কর্নাটকে যেখানে বিজেপি’র সরকার রয়েছে সেখানে দুই হাজার কিলোমিটার ধরে রাস্তা তৈরি করে দিচ্ছে। আজ এমনটাই মন্তব্য করলেন রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী। তিনি এদিন রায়গঞ্জে কেন্দ্রীয় সরকারের একশ দিনের কাজে এই রাজ্যে বঞ্চনার প্রতিবাদে একটি পথ সভায় বক্তব্য রাখেন।

 

সেখানেই তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনা নীতির তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন , বিজেপি যখন সরকার গঠন করেছিল কেন্দ্রে তখন ৩৭ % ভোট ছিল তাদের। ৬৩ % মানুষ বিজেপির বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছিল। তাই এখন প্রতিশোধের রাজনীতি শুরু করেছে কেন্দ্রে বিজেপি সরকার। কৃষ্ণ বাবু এদিন আরো বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার এর  এখন অবস্থান এতটাই নিচে নেমে গেছে যে রেলকে বিক্রি করতে হচ্ছে ,সেল কে বিক্রি করতে হচ্ছে , এয়ারলাইনস বিক্রি করতে হচ্ছে। তিনি বলেন এইসব হচ্ছে টা কি। এর জবাব কি বিজেপি দিতে পারবে ?ভোটের আগে তো বিজেপি অনেক বড় বড় কথা বলেছিল। তিনি বলেন ভারতবর্ষের জনগণ ২০২৪  সালে বিজেপি  কে উচিত শিক্ষা দিবে। কৃষ্ণ কল্যাণী এদিন বলেন,  পশ্চিমবঙ্গ কেন বারে বারে বঞ্চিত হবে। এখান থেকে ইনকাম ট্যাক্স ও জিএসটি কেন্দ্রীয় সরকার হাজার হাজার কোটি টাকা নিয়ে গেলেও এই রাজ্যের উন্নয়নে কেন্দ্রীয় সরকার শুধু বঞ্চনায় করে যাচ্ছে। উন্নয়নমূলক কাজ কেন্দ্রীয় সরকারের থমকে রয়েছে এখানে  । একদিকে যেমন এক কিলোমিটার রাস্তা কেন্দ্রীয় সরকার বরাদ্দ করছে না অপরদিকে ১০০ দিনের কাজের টাকাও এই রাজ্যকে দিচ্ছেনা। তাহলে এখানকার মানুষ কেন ইনকাম ট্যাক্স দিবে ?  তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন , হাত পুড়ে কখনো দেওয়ালি করতে নেই। এখন সারা ভারতবর্ষের জনগণ বুঝতে পেরেছে। তিনি বলেন ভারতবাসীর অ্যাকাউন্টে মোদি সরকার বলেছিল ১৫  লক্ষ টাকা করে ব্যাংক একাউন্টে তাদের দিবে,  সেটাতো তারা দিলো না তার বদলে ১৫ হাজার টাকা করে তো দিতে পারতো ? ভারতের প্রধানমন্ত্রী শুধু মিথ্যা কথা ছাড়া আর কিছুই করেন না। কিন্তু এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যা বলেন মুখে তাই করেন কাজে। এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষ কে বলেছিলেন লক্ষী ভান্ডার এ ৫০০  টাকা করে দেওয়া হবে।  সেই প্রতিশ্রুতি মত এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তার কথা কাজে পরিণত করেছে। এখন সাধারন  মানুষ  ঘরে ঘরে লক্ষী ভান্ডার পাচ্ছে ৫০০  টাকা করে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী সাধারণ মানুষকে শুধু  বড় বড় স্বপ্ন দেখিয়ে গিয়েছে। স্বপ্ন একটাও পূরণ হতে দেননি তিনি। তাই সাধারণ মানুষদের বর্তমান পরিস্থিতির উপর দাঁড়িয়ে বাস্তবতাকেই ভেবে চিন্তাভাবনা করা উচিত। তিনি বলেন রাম মন্দির হচ্ছে হবে। কিন্তু এই মন্দির কোন একটি বিশেষ রাজনৈতিক দল তৈরি করতে পারে না। সবাই ঠাকুর দেবতা কে বিশ্বাস করে এবং পুজো করে। কৃষ্ণ কল্যাণী এদিন চাচা ছোলা ভাষায় জানিয়ে দেন কেন্দ্রীয় সরকার এইভাবে যদি রাজনীতি করতে থাকে তার ফল ভালো হবে না। ২০২১ এ পশ্চিমবঙ্গের জনগণ আপনাদের দেখিয়ে দিয়েছে আশা রাখবো ২০২৪ এ ও ভারতবর্ষের জনগণ দেখিয়ে দেবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *